Home সারাদেশ বার্তা প্রিয়া সাহা ইস্যুতে ব্যারিস্টার সুমনের উদ্দেশ্যে যা বললেন এডভোকেট গোবিন্দ প্রামাণিক

প্রিয়া সাহা ইস্যুতে ব্যারিস্টার সুমনের উদ্দেশ্যে যা বললেন এডভোকেট গোবিন্দ প্রামাণিক

1506
0

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে দেশ নিয়ে মিথ্যাচার করার অভিযোগেমানবাধিকার কর্মী প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে মামলা করার ঘোষণা দিয়েছেন ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমন।

রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে রোববার (২১ জুলাই) আদালতে প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হবে বলে শুক্রবার (১৯ জুলাই) রাতে ফেসবুক পেজে দেওয়া এক লাইভ ভিডিও বার্তায় ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমন এই ঘোষণা দেন। এর প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোটের মহাসচিব এডভোকেট গোবিন্দ চন্দ্র প্রামাণিক তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমনের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘হিন্দু মিসিং এর তালিকা তো সরকারই অর্পিত সম্পত্তির “ক” এবং ” খ” তালিকায় গেজেট আকারে প্রকাশ করেছে। তো প্রিয়া সাহার সত্য উচ্চারনে সবার গায়ে আগুন জ্বলছে কেন? একজন ব্যারিষ্টার সাহেব তো রাষ্ট্রদ্রোহ মামলার ঘোষণা দিয়েছেন। উনি কি অর্পিত সম্পত্তির তালিকায় উল্লিখিত ব্যক্তিদের দেখাতে পারবেন? তারা কি মিসিং নন? বাংলাদেশ সরকারের পরিসংখ্যান ব্যুরোর হিসাব কি বলছে?
১৯০১ সালে বাংলা ভুখন্ডে মুসলিম ছিলো ১ কোটি ৯১ লক্ষ ১৩ হাজার। আর হিন্দু ছিলো ৯৫ লক্ষ ৪৫ হাজার। অর্থাৎ মুসলমান জনসংখ্যার অর্ধেক হিন্দু। ২০০১ সালে মুসলমান জনসংখ্যা ১১ কোটি ১০ লক্ষ ৭৯ হাজার এবং হিন্দু জনসংখ্যা ১ কোটি ১৩ লক্ষ ৭৯ হাজার। সম্প্রীতির হিসাব অনুসারে হওয়া উচিত ছিলো সাড়ে ৫ কোটি। সরকারী হিসাব মতেই ৪ কোটি হিন্দু মিসিং।

বর্তমান সরকার অর্পিত সম্পত্তির ” ক” আর ” খ” তফশিলে গেজেট আকারে যে সব নাম প্রকাশ করেছে তারা কোথায়? ব্যারিষ্টার সাহেবের কাছে আমাদের দাবী ,সম্প্রীতি যদি দাবী করেন, অর্পিত সম্পত্তির তালিকায় প্রকাশিত মানুষদের প্রথমে ফিরিয়ে এনে তাদের সম্পত্তি ফেরৎ এর ব্যবস্থা করেন। তারপর মামলা কইরেন।’

প্রসঙ্গত, বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের কার্যালয় হোয়াইট হাউসে ধর্মীয় নিপীড়নের শিকার হওয়া ১৯টি দেশের ২৭ জন ব্যক্তির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ওই সাক্ষাৎকালে ট্রাম্পের কাছে নিজের দেশ সম্পর্কে ‘ভয়ঙ্কর’ অভিযোগ করেন প্রিয়া।

তিনি ট্রাম্পকে বলেন, ‘স্যার, আমি বাংলাদেশ থেকে এসেছি। সেখানে ৩৭ মিলিয়ন হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান বিলীন হয়ে গেছে। দয়া করে আমাদের সাহায্য করুন। আমরা বাংলাদেশেই থাকতে চাই। সেখানে এখনো ১৮ মিলিয়ন সংখ্যালঘু মানুষ রয়েছে। আমার অনুরোধ, দয়া করে আমাদের সাহায্য করুন। আমরা আমাদের দেশ ছাড়তে চাই না। শুধু থাকার জন্য সাহায্য করুন।’

প্রিয়া আরও বলেন, ‘আমি আমার ঘরবাড়ি হারিয়েছি, তারা আমার ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে দিয়েছে। তারা আমার জমিজমা দখল করে নিয়েছে। কিন্তু তারা (প্রশাসনবা সরকার) কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি এখন পর্যন্ত।’

এ সময় ট্রাম্প ওই নারীকে প্রশ্ন করেন, ‘কারা জমি দখল করেছে, কারা ঘরবাড়ি দখল করেছে?’ উত্তরে ওই নারী বলেন, ‘তারা মুসলিম মৌলবাদি গ্রুপ। তারা সব সময় রাজনৈতিক আশ্রয় পায়। সবসময়ই পায়।’