Home প্রযুক্তি বার্তা অজানা ডীপ ওয়েব, ডার্ক সাইড ও সাধারণ ওয়েব ব্যবহারে সতর্কতা

অজানা ডীপ ওয়েব, ডার্ক সাইড ও সাধারণ ওয়েব ব্যবহারে সতর্কতা

98
0

অনেকে আমার কাছে ডীপ ওয়েব সম্পর্কে বেশ কিছু তথ্য বলেছে যার অধিকাংশই ভূল । তাই সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য লেখাটা দিলাম । ডার্ক/ডীপ ওয়েব ইন্টারনেটের এক রহস্যময় জগত।এবং এই জগত নিয়ে অনেক জল্পনা কল্পনা রয়েছে,এছাড়া নানা রকম সত্য/মিথ্যা কথা ও গল্প রয়েছে ডার্ক/ডীপ ওয়েব নিয়ে।অনেকেই সেই কৌতূহলের জন্য ইন্টারনেটের এই রহস্যময় জগতে ডুব দিতে চায়।

সেই রহস্যময় জগতে ভালো থেকে খারাপের পরিমাণটাই বেশি।

Deep Web/Dark Web হল ইন্টারনেটের অদৃশ্য অংশ। সহজ ভাবে বলতে গেলে, Dark Web হল ইন্টারনেটের একটা অংশ যা কিনা সার্চ ইঞ্জিন এ সূচীব্ধ করা হয় নি।

Dark web সম্পর্কে টেকটিউনসে আর একটি জনপ্রিয় টিউন “THE BLACK-WEB”: মায়াজালেঘেরা ইন্টারনেটের রহস্যময় অন্ধকারজগত। Dark web সম্পর্কে জানতে চাইলে পড়ুন।

“Dark Web অনেক তথ্য নিয়ে তৈরী এবং যা প্রযুক্তিগত কারণের জন্য যা সার্চ ইঞ্জিন দ্বারা সারিবদ্ধ বা আপডেট করা যায় না,” বলেছেন Alfonso এ Kejaya Muñoz, McAfee নিরাপত্তা গবেষক। গবেষণায় দেখা গেছে Deep Web ইন্টারনেটের ৯০% প্রতিনিধিত্ব করে।

“Deep Web 1994 সালে শুরু হয় এবং ‘Hidden Web” হিসাবে পরিচিত ছিল। এটি 2001 সালে ‘Deep Web’ নামকরণ করা হয়, “বলেছেন Kejaya Muñoz.
Tor (short for The Onion Router) হল Deep Web এ যাওয়ার প্রধান ওয়েব পোর্টাল। এটি ব্যবহারকারীর তথ্যকে এনক্রাপ্ট করে এবং একটি স্বেচ্ছাসেবক সার্ভারের মাধ্যমে সারা বিশ্বের নেটওয়ার্ক এ পাঠায়। এই পদ্ধতিতে এটি প্রায় অসম্ভব হয়ে যায়, ব্যবহারকারীদের অথবা তাদের তথ্যগুলোকে ট্র্যাক করা।

ডিপ ওয়েবে কি আপনি খুঁজে পেতে পারেন?

অনেক ব্যবহারকারী ইতিমধ্যে ইন্টারনেট অন্ধকার পার্শ্ব-এর সাথে পরিচিত! কিভাবে অবৈধ সঙ্গীত ডাউনলোড, বিনামূল্যে সর্বশেষ সিনেমা দেখা, বা কিভাবে অল্প অর্থের বিনিময়ে অতিরিক্ত ড্রাগস অর্ডার দেয়া যায়। “””But the Deep Web goes farther, almost unimaginably farther”””.

এছাড়া শিশু পর্নোগ্রাফি, অস্ত্র পাচার, মাদক দ্রব্য, ভাড়াটে হত্যাকারীরা, prostitutes, সন্ত্রাসবাদীরা, ইত্যাদি সব Deep Web-কে সব চেয়ে বড় Black Market-এ পরিনত করেছে।
“Deep Web সাইটে আপনকে চুরি করা ক্রেডিট কার্ড বিক্রয় করবে এমন দল আছে,তারা এটিএম এর মাধ্যমে ক্রেডিট কার্ড ক্লোন করে, কোকেন বিক্রি করে এবং এসব আরো না জানা কাজ পারে,” বলেছেন দিমিত্রি Bestuzhev, বিশ্লেষক Kaspersky এর ল্যাব দলের পরিচালক।

এমন একটি জনপ্রিয় Black Market হলো ” Silk Road”!

( N. B. some says it is now closed but I Anamul have got a lot of sign that indicates silk road is still opened)

Silk Road Deep Web-এ জনপ্রিয় মাদক দ্রব্য কেনা-বেচার জন্য ! পরমানন্দ থেকে, খাঁটি MDMA, গাঁজা, psychedelics opiates এবং বীজ ইত্যাদি। তারা মূলত একটি ইউজারবেজড-এ Drug বিক্রি করে। তারা ফাটান, সালফিউরিক অ্যাসিড এবং তরল পারদ, চোরাই ক্রেডিট কার্ডের জন্য ‘অর্থ’, ভ্রমণকারীরা চেক এবং নকল বিল এবং কয়েন, আকাটা পাথরের মত ‘জুয়েলারী’,ভালো ‘ল্যাব সরবরাহ’, এসব কিছুর জন্য বিভাগ আছে। চুরির স্বর্ণ ও অন্যান্য মূল্যবান ধাতু এবং অবশেষে ‘অস্ত্র’, যা তারা বর্তমানে কানাডা বিক্রয়ের জন্য একটি আলাদা রুম রাখে।

(পুন. দ্রষ্টব্য: এটি সিল্ক রোড থেকে হয় না, কিন্তু একটি জনপ্রিয় ডিপ ওয়েবের মেসেজ বোর্ড)

Deep Web-এর সর্বাধিক লেনদেন সাধারণত বিটকয়েন মাধ্যমে সঞ্চালিত হয়ে থাকে। আপনি এই ডিজিটাল মুদ্রা দিয়ে সব কিনতে পারবেন। এমনকি আপনি Prostitute ও ভাড়া করতে পারবেন! তবে এখন পর্যন্ত, এ লেনদেন গুলো বেনামী হয়। 1 Bitcoin = 7210.5 (US dollar) মার্কিন ডলার!

আপনাদেরকে একটি STRONG WARNING দিচ্ছি, আপনি কোন সাইট ভিজিট করছেন বা কোন লিংক-এ click করছেন, এ ব্যপারে কেয়ারফুল থাকবেন। Wiki page গুলো সাধারণত সেফ site, কিন্তু যেসব জায়গায় “‘chan’ অথবা ‘bulletin board’ লেভেল করা থাকে, সেসব জায়গা হতে দূরে থাকবেন, because most of them contain child pornography! Deep Web site গুলোর মধ্য কিছু আছে গ্যাং পরার্মশ দেয়, কোথাও কিভাবে বিস্ফোরন করতে হবে, কাউকে মার্ডার করা, মোট কথা ইললিগ্যাল দুনিয়ার সব এখানে পাওয়া যায়।

কিন্তু সব Deep Web site আবার খারাপ না! যেমন WikiLeaks, এই সাইট টি পাবলিক এর সামনে আসার আগে Deep Web এই ছিল! ইভেন এখনও কেউ যদি কোনো inportent information WikiLeaks এ পাবলিশ করতে চায়,তাহলে তা Deep Web এর মধ্যমে করা সম্ভব!

Deep Web/Dark Web

ডার্কওয়েবে অনলাইন ব্যাংক একাউন্ট কেনা যায়। যেইগুলোতে অনায়াসে প্রবেশ করতে পারবেন তবে সাধারনত দাম নির্ধারণ হয়ে থাকে। এটা নির্ধারিত হয় সেই একাউন্টে ব্যালেন্স কত আছে তার উপর ? যদি আপনার একাউন্ট ব্যালেন্স $১০০০ ডলার থাকে তবে আপনার সেই একাউন্ট ডার্ক ওয়েবে বিক্রি হবে মাত্র ৳৫০ ডলারে।

ডার্ক ওয়েবে মাত্র ৳৫০ ডলার থেকে শুরু পার ডে সার্ভিস, যাতে আপনি আপনার সাইবার ক্রিমিনাল ক্যারিয়ার শুরু করতে পারবেন। ডার্ক ওয়েবের প্রথম সাকসেসফুল ওয়েব মার্কেটপ্লেস ‘Silk Road’ যেখানে ছিল ছিল প্রায় ৯৫৫০০০ রেজিস্টার্ড ইউজার, এবং ১.২মিলিয়ন ব্রোকার, যাদের লেনদেনের পরিমান ছিল প্রায় ২১৪মিলিয়ন ডলারের (প্রায় ১৭১২ কোটি টাকা) যেটা শুরু হয়েছিল ২০১১ সালে এবং বন্ধ হয়ে যায় ২০১৩ সালে।

আমরা রেগুলার ইন্টারনেটে যা খুঁজি, তার থেকে ডার্কওয়েবে কোন কিছু খোঁজা অনেক কঠিন, কারন সেখানে অবৈধ কোম্পানি গুলো তা পরিচালনা করে, তাই প্রায় প্রতিদিন ডার্কওয়েবে তারা তাদের ইউআরএল পরিবর্তন করে, এমনকি প্রতি ঘণ্টায়ও পরিবর্তন করে থাকে।

ডার্ক/ডীপ ওয়েবে এমন কিছু সাইট রয়েছে যেখানে কিছু মানুষ রয়েছে যারা আপনার জন্য যে কোন কিছু করতে পারবে, নির্দিষ্ট দামে। হতে পারে আপনার এক্সএর যে কোন সিক্রেট অথবা আপনাদের গভারমেন্ট ওয়েবসাইট। সেই মানুষ গুলো সবসময় রেডি রয়েছে যে কোন কাজ করার জন্য। ডার্ক/ডীপ ওয়েব অস্ত্র বেচার কিছু ষ্টোর রয়েছে, কিন্তু সেটা শুধুমাত্র ইউরোপবাসীর জন্য। আপনি ইউরোপবাসী হলে সেইসব ষ্টোর থেকে সরাসরি অস্ত্র কিনতে পারবেন।

[যাদের হার্ট দুর্বল সাইট গুলো তাদের জন্য নয়]

ডার্ক/ডীপ ওয়েবে কিছু সাইট রয়েছে,
সেখানে লাইভ এক্সপেরিমেন্ট করা হয় মানুষের শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ নিয়ে (তার বিস্তারিত বর্ণনা করা এখানে সম্ভব নয়,মানুষ এমনও হতে পারে, আপনার সব কল্পনাকে তারা হার মানাবে), যাদের নিয়ে এইসব এক্সপেরিমেন্ট করা হয়, বেশীরভাগ মানুষ গুলো হল ঘরহীন, যাদেরকে রাস্তা থেকে উঠানো হয় এবং তাদের উপর এইসব এক্সপেরিমেন্ট করে থাকে। { name∆ RED ROOM]

ডার্ক/ডীপ ওয়েবে যেকোনো দেশের গভারমেন্ট সিক্রেট পাওয়া যায়, কিছুদিন আগে এফবিআই এর কিছু সিক্রেটও পাওয়া গেছে। তাহলে একবার ভেবে দেখুন, যেখানে এফবিআই সিক্রেট পাওয়া যায় সেখানে কত কিছুই না হয়।

ডার্ক/ডীপ ওয়েবে আপনি হিটম্যান শপিং সার্ভিস পাবেন। আর ট্রানজেকশন হিসেবে রয়েছে বিটকয়েন। ডার্ক/ডীপ ওয়েবে হিটম্যানরা কানাডার জন্য $১০০০০ডলার এবং ইউরোপের জন্য $১২০০০ডলার নিয়ে থাকে।তবে যাদেরকে তারা মারবে সেই লোকদের গুরুত্ব এবং প্রয়োজয়নীতা হিসেবে দাম $১০০০০০ডলার পযন্ত তারা নিয়ে থাকে।

যারা নিয়মিত ইন্টারনেট ব্যবহার করে,তাদের প্রায় সবাই ডার্ক/ডীপ ওয়েব সম্পর্কে পরিচিত।আর যারা ডার্ক/ডীপ ওয়েবের রেগুলার বাসিন্দা তারা এর ভালো এবং মন্দ দিক সম্পর্কে সবই জানেন।তবে অনেকেই রয়েছে যারা এর অন্ধকার দিকগুলো সম্পর্কে এখনো জানেন না। আবার অনেকেই বিশ্বাসই করতে চায় না যে ডার্ক/ডীপ ওয়েবে আসলেই এগুলো হয় নাকি।

ডার্ক ওয়েবে কি বিক্রি হয় জানেন?

যেগুলো বিক্রি হওয়ায় টপ লিস্টে রয়েছে:

প্রতারণামূলক ডকুমেন্ট
চুরি হয়ে যাওয়া ক্রেডিট কার্ড
পরিচয়পত্র
অস্ত্র
এবং সকল প্রকার জাল জিনিস।
ডার্ক/ডীপ ওয়েবে আপনি যে কোন ড্রাগ কিনতে পারবেন, তাও আবার একদম প্রিমিয়াম কোয়ালিটির। এবং ডেলিভারির জন্য আপনাকে কোন টেনশন নিতে হবে না,যাদের কাছে ওয়ার্ডার করবেন,তারাই এর প্যাকিং এবং ডেলিভারি করে দিবে।

দুনিয়ার সেরা কিছু হ্যাকারকে আপনি ডার্ক/ডীপ ওয়েবে পাবেন,তবে তাদেরকে খুজে পাওয়া অনেক কষ্টসাধ্য।

আপনি ডার্ক/ডীপ ওয়েবে যা কিছুই করুন না কেন আপনাকে খুবই সতর্ক থাকতে হবে,আপনার কোন একটি ভুল ক্লিকেই হয়ত আপনার কম্পিউটার লাইফ শেষ হয়ে যেতে পারে,(পরিনাম কত ভয়াবহ হতে পারে তা আপনার কল্পনারও বাইরে)

ডার্ক/ডীপ ওয়েবে আপনি আপনার কাজ অনুযায়ী হিটম্যান নিতে পারবেন,অনেক হিটম্যান রছে যারা ধরা পরেছে,আবার কিছু হিটম্যানরা এটা ক্লেইম করে থাকে যে তারা সেই বিজনেসে ৭-৮বছর ধরে আছে। তার মানে সে এই ছয় বা সাত বছরে যতগুলো মানুষ মেরেছে সব ধরা পরা ছাড়া।

যে সমস্ত বই কোন দেশে নিষিদ্ধ বা পুরো বিশ্বেই নিষিদ্ধ রয়েছে, সেই সমস্ত বই আপনি ডার্ক/ডীপ ওয়েবে পেয়ে যাবেন।

ডার্ক/ডীপ ওয়েবে কিছু সাইট আছে, যেখানে কিছু মানুষ রয়েছে যারা আপনার জন্য যে কোন কিছু চুরি করতে প্রস্তুত, তার চুরি সাকসেসফুল হলে সে আপনাকে সেই চুরি হওয়া জিনিসের ছবি পাঠাবে প্রমান হিসেবে।

অনেক দেশের ইন্টারনেট আইন বেশ কঠিন,তাই বিভিন্ন দেশের জার্নালিস্টরা ডার্ক/ডীপ ওয়েবের মাধ্যমে যে কোন দেশ সম্পর্কে পৃথীবির যে কোন প্রান্তে বসে,অন্য দেশ সম্পর্কে নানা রকম রিসার্চ করে থাকে।

ডার্ক/ডীপ ওয়েবে এমন কিছু সাইট রয়েছে, যেখানে অসুস্থ মস্তিস্কের লোক রয়েছে যারা তাদের নিজের পরিবারের নানা রকম গোপন ভিডিও লাইভ স্ট্রিমিং করে থাকে গোপন ক্যামেরার মাধ্যমে।

ডার্ক/ডীপ ওয়েবে প্রায় সব রকমের স্পোর্টের অবৈধ বাজি/ফিক্সিং হয়ে থাকে।এমন কোন খেলা বাদ নেই যে সেখানে তার ফিক্সিং হয় না।

ডার্ক/ডীপ ওয়েবে কিছু সাইট রয়েছে যেখানে চামড়ার বিভিন্ন প্রোডাক্ট পাওয়া যায়,যা শুধুমাত্র মানুষের চামড়া দিয়েই তৈরি।কিছু মানুষ রয়েছে যাদের এমন বিকৃত শখ রয়েছে এবং তারা এগুলো শখের জন্য কিনে থাকে।
সেই সাইট গুলো সাধারণ মানুষের জন্য নয়।

নোটঃ ডার্ক/ডীপ ওয়েবের অনেক বিষয় আছে যা সাধারণ মানুষের না জানাই ভালো, তাই সেইসব অনেক তথ্য নিয়ে আলোচনা করা হচ্ছে না।

ডার্ক/ডীপ ওয়েবকে কেন ইন্টারনেটের অন্ধকার দিক বলা হয়,এবং সবাইকে সচেতন করার জন্য

নোটঃ (যে কোন কাজ করার আগে ভেবে নিন কাজটি করার পর আপনার পরিনতি কি হবে, আপনার পরিবারের কি হবে!!! সবাই ভালথাকুন, ক্রাইম থেকে দূরে থাকুন)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here