Home সম্পাদকীয় বড়দিন উপলক্ষে শেরপুরে উৎসবের আমেজ

বড়দিন উপলক্ষে শেরপুরে উৎসবের আমেজ

99
0

শেরপুর প্রতিনিধি:
বড়দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই বাড়ছে শেরপুরের গারো পাহাড়ের খ্রিষ্টান ধর্মাবলম্বীদের ব্যস্ততা।খ্রিষ্টান সম্প্রদায় যিশু খ্রিষ্টের জন্মদিন পালন উপলক্ষে চলছে বিভিন্ন চার্চে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা আর সাজ সজ্জার কাজ। চলছে নানা প্রস্তুতি। নগর কীর্তন করে জানান দিচ্ছেন বড়দিনের বার্তা। বইছে উৎসবের আমেজ।

শেরপুরের শ্রীবরদী, ঝিনাইগাতী ও নালিতাবাড়ী উপজেলার সীমান্ত জুড়ে গারো পাহাড়। এখানকার হারিয়াকোনা, বাবেলাকোনা, দিঘলাকোনা, খারামোরা, খ্রিষ্টানপাড়া, গজনী, রাঙটিয়া, গজারিকুড়া, বারোমারী,পানিহাতা ও মরিয়মনগরসহ প্রায় ৩০টি বেশী গ্রামের খ্রিষ্টান ধর্মাবলম্বীরা যিশু খ্রিষ্টের জন্মদিন পালনে নিচ্ছে নানা প্রস্তুতি।

এর মধ্যে বিভিন্ন চার্চে প্রার্থনা, কেক কাটা, কীর্তন প্রতিযোগিতা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, মিষ্টি বিতরণ আর প্রীতিভোজসহ নানা আয়োজন। বর্ণাঢ্য এ আয়োজনের পাশাপাশি নিজেদের ঘরদোয়ার পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা আর কেনাকাটায় যেন ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন খ্রিষ্টান ধর্মাবলম্বীরা।

যারা এলাকার বাইরে পড়ালেখা বা কর্মস্থলে রয়েছে তারাও আসছে নিজ বাড়িতে। এরই মধ্যে প্রায় প্রতি রাতে নগর কীর্তনের মধ্য দিয়ে জানান দিচ্ছে বড়দিনের আগাম বার্তা। পাহাড়ি জনপদের এসব বাড়িঘর প্রাকৃতিকভাবেই মনোমুগ্ধকর। এর মধ্যে কেউবা রাঙিয়ে তুলছেন রঙিন সাজে। এতে সৌন্দর্যে যোগ হচ্ছে নতুন মাত্রা।

সোমবার খ্রিষ্টান ধর্মপল্লীতে গেলে কথা হয় নালিতাবাড়ী উপজেলা ট্রাইবাল ওয়েল ফেয়ার এসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান লুইস নেংমিনজার এম সাংমার সাথে। তিনি বলেন, এখন চলছে যিশুখ্রিষ্টের জন্মদিন পালনের নানা প্রস্তুতি। ২৪ ডিসেম্বর দিবাগত রাতে প্রার্থনা ও কেক কাটার মধ্যদিয়ে শুরু হবে বড়দিনের কার্যক্রম। এরপর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, নগর কীর্তণ, মিষ্টি বিতরণসহ নানা কর্মসূচী। এ দিনকে ঘিরে পাহাড়ি গ্রামগুলোতে এখন বিরাজ করছে উৎসবের আমেজ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here